Home / Windows / উইন্ডোজ রিফ্রেশ বাটন ম্যাজিক – রিফ্রেশের ম্যাজিক
উইন্ডোজ রিফ্রেশ বাটন
উইন্ডোজ রিফ্রেশ বাটন

উইন্ডোজ রিফ্রেশ বাটন ম্যাজিক – রিফ্রেশের ম্যাজিক

ওয়েলকাম টু অ্যানাদার এপিসোড অফ বেসিক ভাই আজকের ভিডিওতে আমরা উইন্ডোজ আরেকটি ওভারহিট ফিচার নিয়ে কথা বলবো এবং এই ফিচারটি হচ্ছে যারা কম্পিউটার ব্যবহার করে তাদের মধ্যে সবচেয়ে পুরনো সবচেয়ে শক্ত এবং সবচেয়ে বড় মেয়ে এবং ইসকন সেকশন নির্ধারণ করতে পেরেছেন টাইটেল দেখে সেটা হচ্ছে উইন্ডোজ রিফ্রেশ বাটন আপনি যদি উইন্ডোজ বুকে হাত দিয়ে বলুন তো আপনি জীবনে কখনো রিফ্রেশ দেননি কিংবা উইন্ডোজ অন করার সাথে সাথে অন্য কোন একটা কাজ করার আগে একবার রিফ্রেশ না চাপলে মনে হয় পেটের ভাত হজম হয় না এরপরে ফাইল কপি দিলাম কপি হচ্ছে এরমধ্যে আমি ফেরত দিতে দিতে দিতে জানেন প্রসেসরে বুঝতাছে এবং আমাদের পিসি আলটিমেটলি দ্রুত কাজ করে আপনি যে প্রসেসরে হোক না কেন যত বেশি রিফ্রেশ দিবেন আপনার উইন্ডোজ কে ফার্স্ট হয়েছে ব্রেকফাস্ট হয়েছে ব্যাপারটা কতটুকু

তাকে বলে নিচ্ছি আপনি যদি আমার চ্যানেলে নতুন হয়ে থাকেন তাহলে প্লিজ সাবসক্রাইবার টোন আর যদি অলরেডি সাবস্ক্রাইব করে থাকেন থ্যাংক ইউ সো মাচ থ্যাংক ইউ কর্ম অ্যাপ ফর সাপোট ইংলিশ ভিডিও কর্মের মাধ্যমে খুব সহজে প্রেসার রান নিজ এলাকায় এন্ট্রি লেভেলের জব খুঁজে নিতে পারেন সেই সাথে তাদের লাঞ্চার এর সাহায্যে মানসম্মত অনলাইন ক্রাশ কোর্স এর মাধ্যমে অর্জন করে নিতে পারেন নতুন নতুন স্কেল এছাড়া এপ্লাই করার সময় জব রিলেটেড বেসিক mcq তেস্ট দিয়ে বাড়িয়ে নিতে পারেন আপনার চাকরির নিশ্চয়তা আপনার পছন্দের চাকরি খুঁজে পেতে ও ক্যারিয়ার গড়তে নিচের ডাউনলোড লিঙ্ক থেকে এখনই ডাউনলোড করে নিন কর্ম কর্ম সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানতে আয় বাটনে ক্লিক করে আমাদের কর্ম নিয়ে পুরো ভিডিওটি দেখে আসতে পারেন এবং ভিডিও ডিস্ক্রিপশন চেক করতে পারেন রিফ্রেশ বাটন এর কাজ যেটা জানেন সেটা একদমই ভুল তার মানে ডিপি দিলে আপনার কম্পিউটার কোনোভাবেই ফাস্ট হয়না সেটা রিয়েলিটি থেকে আমরা ছোট্ট একটি গল্প শোনেন আমার গল্প আমি যখন স্কুলে পড়তাম তখন আমার একটা mp3 প্লেয়ার ছিল

1 গিগাবাইট এবং শেষে একটা স্পেস সেন্টার থেকে নিয়ে একদিন বাজারে গেলাম একটা কম্পিউটারের দোকানে যেখানে গান ডাউনলোড করা হয় সেখানে গিয়ে বললাম যে আমাকে সলুটি গানগুলো বাছাই করে একটা ফোল্ডারে রাখল এরপরে আমার mp3 প্লেয়ার কপি দিল এবং সে যুগে টেকনোলজি ছিল সেটা আমি এক ঘন্টা বসে ছিলাম এবং কবে হচ্ছে অর্ধেকও হয়নি যে কম্পিউটারে লোক ছিল সে বলতেছে আমার তো লাঞ্চের টাইম হয়েছে আমি তো লাঞ্চে চলে যাব তাহলে আমি ওয়েট করলাম তাহলে কিভাবে হবে তাহলে দ্রুত কপি হবে কম্পিউটার ফাস্ট হবে আমি এখানে বসে বসে আরো টানা এক ঘন্টা এক ঘন্টা পর এসে খেয়েদেয়ে এসে দেখি হয়ে গেছে এবং আমি রিপ্লে দেওয়ার সময় আমি খেয়াল করিনি টেলিফিল্ম করতেছি তুই তো আসলেই বাড়তেছে যখন দিয়েছি আরো দ্রুত চালু হয়ে গেছে আমার তাকাতে হয় না চোখ বন্ধ করে আমি রিফ্রেশ দিচ্ছিলাম তখন থেকে আমার মধ্যে

রিফ্রেশ বাটন চাপলে উইন্ডোজ ফাস্ট হয় এরপর থেকে চোখ বন্ধ করে রেখেছে ততদিন পর্যন্ত আমি জানতে পেরেছি আমরা যখন থাকবে তখন 144 ডেক্সটপে গ্রাফিক্সে গ্রাফিক্স শুধুমাত্র রিফ্রেশ হয় সেটা হচ্ছে যখন উইন্ডোজ শুরু হয় তখন কিন্তু এরকম গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেস ছিল না মানে আপনি মাউস নিয়ে মাই কম্পিউটারে ক্লিক করবেন তারপরে রিসাইকেল বিন ক্লিক করবেন ব্রাউজারিফি কোন এরকম ছিল না কিন্তু আমরা সব কমেন্টের মাধ্যমে করতেন কমেন্টের মাধ্যমে যখন ফরেস্ট ইনিশিয়াল উইন্ডোজ রিলিজ হয় প্রথম গ্রাফিক্যাল ইউজার ইন্টারফেস গ্রাফিক্স প্রসেসিং পারবো ছিল না সেখানে যদি আপনি কোন কিছু চেঞ্জ করতে একটা ফোল্ডারে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় নিয়ে গেলেন তখন সেটা না ব্যাকগ্রাউন্ড চেঞ্জ হয়ে গিয়েছে এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় চলে গিয়েছে কিন্তু সামনে এসে স্ক্রিনটা রিফ্রেশ স্ক্রিনে একটি সোলার এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় যেত না তখন ইন্টারফেসটি পরিচিত এবং আমরা দেখতাম যে

এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় উইন্ডোজ আছে এবং গান্ধী কম্পিউটার গুলো আছে সেখানে গ্রাফিক্স প্রসেসিং ইউনিট অনেক পাওয়ারফুল এবং এগুলো অটোমেটিকেলি কন্টিনিউ স্বপ্না গ্রাফিক্স তাকে ছোট করতে থাকে তার মানে আপনি কি আর নতুন করে রেফারেন্স দিতে হয়না এখন বলতে পারেন চাইলে কেন রাখছে এখনো কোনো কোনো ক্ষেত্রে এটা যে আপনি কখনো কোন কিছু চেঞ্জ করেছেন আপনি একটা ফোল্ডারের নাম করেছেন কিন্তু সেটা চেঞ্জ হয়নি এমনি আপনার সাথে চেঞ্জ হয়ে যাবে আপনি ফাইলগুলো অরগানাইজ করেছেন অ্যারেঞ্জ করেছেন ডেস্কটপ কিংবা আপনার ফাইল এক্সপ্লোর বানানো যেকোনো জায়গায় রিফ্রেশ কাজ করে সেখানে হয়েছে কিন্তু ফাইলগুলো মুভি এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় ঠিক হয়ে যাবে আপনার উইন্ডোজের কম্পিউটারের প্রসেসর হয়ে যাবে আপনার পেন্টিয়াম প্রসেসর এর একটা সিপিইউ যেটাতে ওয়ান জিবি র্যাম লাগে রাখছেন আপনি রিপ্লাই দিচ্ছেন ভাবতেছেন সেটা করতে পারবে এরকম কখনোই হবে না বরং

রিফ্রেস দিন আপনার কম্পিউটারে ভালো হয় কারণ আপনি যে গ্রাফিক্যাল ইন্টারফেস করার জন্য একটা কমেন্ট দিচ্ছেন কম্পিউটারে সেকন্ড কম্পিউটার প্রসেসর একসেপ্ট করতে হচ্ছে এরপর ফোন করতে হচ্ছে ততক্ষণ এমনও হতে পারে এই পারফরম্যান্সটা আপনার কম্পিউটারের জন্য লোড হয়ে যেতে পারে আমরা যেখানে হ্যাং করে তখন আরো বেশি করে রিপ্লাই দেওয়ার চেষ্টা করি যাতে কম্পিউটারে ফ্রী ইন্টারনেট হয়ে যায় তীব্র হয়েছে যে রিফ্রেশ দিলে কোন কারণে যদি লেগে যায় তারপর আমরা চিন্তা করি হ্যাঁ রিফ্রেশের কারণেই বুঝি হয়েছে এরপর আরো বেশি করে ফেলেছে যেমনটা গ্রহণ করে তখন আপনার কম্পিউটারও লেডিকেনি এবং প্রাক্টিক্যালি এটাই হয় বাট আমরা সেরিয়ালস করতে পারি না আশা করি এখন থেকে আপনারা উইন্ডোজে বিনা কারণে রিফ্রেশ দেবেন না কারণ যে পরিমাণ মানুষ হয়েছে আমি নিজেও জানি যে রিপ্লে দিলে কোন কাজ হবে না স্টিল আমি এখনো উইন্ডোজ এখনো যায়নি আপনাদেরকে সঠিক জিনিসটা

জানানোর জন্য এই ভিডিওটা তৈরি করা সঠিক ইনফরমেশন পেয়েছেন এবং এখন থেকে চেষ্টা করবেন যত কমেন্ট তত পরিবর্তন করা যায় কারণ এটা বদভ্যাস থেকে থাকে তাহলে দেখে লাইক দিবেন কমেন্ট করে জানাবেন কেমন লাগলো আপনাদের সাথে শেয়ার করতে ভুলবেন না আর আমাদের সাবস্ক্রাইব মাই কেমন লাগলো সেটা কমেন্টে জানাবেন ফেসবুকের গ্রুপে জানাতে পারেন

About Editorial Staff

Hey, my name is Sumon, I am a Bangladeshi YouTuber, blogger, actor, and many more. Thanks for reading this article.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

%d bloggers like this: